মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

বিশেষ অর্জন

নাটোর জেলা প্রশাসনের উল্লেখযোগ্য অর্জনসমূহ

 

১। বর্তমান জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ খলিলুর রহমান এর তত্ত্বাবধানে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা সিস্টেম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে এবং ডিজিটাল রেকর্ড রুম সিস্টেমের কার্যক্রম দ্রুত সম্পন্ন করা হয়েছে।

২। বর্তমান জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ খলিলুর রহমান এর তত্ত্বাবধানে নিরাপত্তা ও মনিটরিং এর জন্য জেলা প্রশাসকের কার্যালয়কে সম্পূর্ণভাবে সিসি টিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে।

৩। নাটোর জেলার ফ্রন্ট ডেক্সের সামনে বড় টিভি স্ক্রিনের মাধ্যমে জেলার সকল উন্নয়ন্মূলক কার্যক্রম প্রদর্শন করা হয়।এবং সরকারি দপ্তরগুলোর জনকল্যাণমূলক বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হয়। নাটোরের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ মশিউর রহমান এটি স্থাপন করেন।  

৪। নাটোর জেলার সার্কিট হাউজকে সম্পূর্ণ ওয়াই-ফাই এর আওতায় আনা হয়েছে।নাটোরের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ মশিউর রহমান এর উদ্যোগে এ কাজটি সম্পন্ন হয়।   

৫। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের প্রবাসী কল্যাণ শাখার মাধ্যমে নাটোর জেলার প্রবাসীদের তথ্য সংগ্রহ পূর্বক একটি ডাটাবেজ তৈরী করা হয়েছে। এই ডাটাবেজে নাটোর জেলার ০৬টি উপজেলার ইউনিয়ন ভিত্তিক প্রবাসীদের নাম, পিতা/স্বামীর নাম, স্থায়ী ঠিকানা এবং যে দেশে অবস্থান করছে- তালিকা আকারে প্রবাসী কল্যাণ শাখার অধীনে পিডিএফ ফাইলে লিংক আকারে দেয়া হয়েছে। নাটোরের জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান এর প্রত্যক্ষ তত্তাবধানে এই ডাটাবেজটি প্রস্তুত করা হয়েছে।

৬। জেলা প্রশাসন ভবনের প্রবেশমূখে একটি অভ্যর্থনা ও তথ্য কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এই তথ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে আগন্তুকদের চাহিদা মোতাবেক জেলা প্রশাসক অফিসের বিভিন্ন সেবা সম্পর্কে প্রয়োজনীয় প্রাথমিক তথ্য সরবরাহ করা হয়। নাটোরের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক এস এম এহসান কবির এই অভ্যর্থনা ও তথ্য কেন্দ্র স্থাপন করেন।

৭। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মূখে একটি দৃষ্টিনন্দন বাগান ‘‘ডিসি পার্ক’’ সৃজন করা হয়েছে। সৃজিত এ পার্ক একদিকে যেমন অফিস প্রাঙ্গণের শোভা বর্ধন করছে অপরদিকে কর্মকর্তা-কর্মচারী, আগন্তুকদের অবসর যাপনের একটি প্রধান উপকরণ হিসেবে ভূমিকা পালন করছে। নাটোরের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক মোঃ ইলিয়াস হোসেন এই ডিসি পার্ক স্থাপন করেন।

 

৮)জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এর সম্মুখে নাটোর ও বগুড়া মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বে মাননীয় জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ জাফর উল্লাহ এর আন্তরিক প্রচেষ্টায় একটি দৃষ্টিনন্দন ‘লেক ও ঝর্ণা চত্ত্বর’ তৈরি করা হয়। জেলা প্রশাসক মহোদয় ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ তারিখে এই দৃষ্টিনন্দন ‘লেক ও ঝর্ণা চত্ত্বর’ এর শুভ উদ্বোধন করেন। দিনের বেলায় ‘লেক ও ঝর্ণা চত্ত্বর’ একদিকে যেমন অফিস প্রাঙ্গণের শোভা বর্ধন করছে অপরদিকে রাতের আলোকসজ্জায় সৃষ্ট এর অপরূপ শোভা সকলকে মোহিত করছে।

      

    ‘লেক ও ঝর্ণা চত্ত্বর’(রাতের দৃশ্য) 

    ‘লেক ও ঝর্ণা চত্ত্বর (দিনের দৃশ্য)’